প্রয়োজনে বাঁশের লাঠি দিয়ে সরকারের পতন ঘটানো হবে

  • আপডেট সময় শুক্রবার, জানুয়ারি ২৬, ২০২৪
  • 35 পাঠক

———————————————————————–

এবি পার্টির হুঁশিয়ারি 

———————————————————————-

দিশারী ডেস্ক। ২৬ জানুয়ারি ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ।

কালো পতাকার স্থলে প্রয়োজনে বাঁশের লাঠি হাতে নিয়ে স্বৈরাচার সরকারের পতন ঘটানো হবে বলে হুঁশিয়ারি দিয়েছে আমার বাংলাদেশ পার্টি- এবি পার্টি।

শুক্রবার (২৬ জানুয়ারি) রাজধানীর বিজয়নগরে কেন্দ্রীয় কার্যালয় সংলগ্ন বিজয়-৭১ চত্বরে বিক্ষোভ ও অবস্থান কর্মসূচি থেকে এ হুঁশিয়ারি দেন দলটির শীর্ষ নেতারা।

‘জনপ্রত্যাখ্যাত ফাইভ পার্সেন্ট সরকারের লুটপাট ও দুঃশাসনের বিরুদ্ধে কালো পতাকা হাতে বিক্ষোভ ও অবস্থান কর্মসূচি’তে আরও বক্তব্য রাখেন এবি পার্টির যুগ্ম আহ্বায়ক অ্যাডভোকেট তাজুল ইসলাম, বিএম নাজমুল হক, সদস্যসচিব মজিবুর রহমান মঞ্জু, যুগ্ম সদস্যসচিব ব্যারিস্টার আসাদুজ্জামান ফুয়াদ, ব্যারিস্টার যোবায়ের আহমেদ ভুইয়া, অ্যাডভোকেট আব্দুল্লাহ আল মামুন রানা, যুবনেতা খালিদ হাসান প্রমুখ।

অ্যাডভোকেট তাজুল ইসলাম বলেন, জনগণের সঙ্গে প্রতারণা করে একটি নির্বাচন করা হয়েছে, যার মাধ্যমে এই ফাইভ পার্সেন্ট সংসদ গঠিত হয়েছে। এই অবৈধ সরকার জনগণের ভোটের অধিকার কেড়ে নেওয়ার সঙ্গে সঙ্গে ব্যাংক লুট, সিন্ডিকেট করে গরীব মানুষের পেটে লাথি মেরে দ্রব্যমূল্য বাড়িয়ে জনজীবন দূর্বিষহ করে তুলেছে।

তিনি বলেন, এখন শিক্ষা কারিকুলাম ও পাঠ্যবইয়ের মাধ্যমে আমাদের সন্তানদের নৈতিকতাকে ধ্বংস করার পায়তারা চলছে। যার ইন্ধন যোগাচ্ছে পার্শ্ববর্তী একটি রাষ্ট্র। সরকারকে স্পষ্ট করে বলতে চাই, পঁচানব্বই ভাগ মানুষের ইচ্ছার বিরুদ্ধে কোন স্বৈরাচার সরকার টিকতে পারেনি, আপনারাও (আওয়ামী লীগ) পারবেন না।

মজিবুর রহমান মঞ্জু বলেন, একটি জবাবদিহিমূলক সরকার ক্ষমতায় না থাকায় দেশের মানুষ আজ নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছে। আমরা দেশ স্বাধীন করেছিলাম মানুষের গণতন্ত্র ও ভোটের অধিকার প্রতিষ্ঠার জন্য অথচ সরকার আজ জনগণের ভোটের অধিকারও কেড়ে নিয়েছে। যার ফলে আজ আমাদের কালো পতাকা নিয়ে রাজপথে দাঁড়াতে হচ্ছে।

হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করে তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রীকে বলতে চাই, কালো পতাকার স্থলে প্রয়োজনে বাঁশের লাঠি হাতে আসবে কিন্তু আমরা স্বৈরাচার পতন ঘটাবোই ইনশাআল্লাহ। আগামী ৩০ জানুয়ারি অবৈধ সংসদ বসতে যাচ্ছে, আমরা এই সংসদ মানি না। এবি পার্টির সংগ্রাম চলছে, মানুষের অধিকার প্রতিষ্ঠা না হওয়া পর্যন্ত আমাদের এই সংগ্রাম চলবে ইনশাআল্লাহ।

ব্যারিস্টার ফুয়াদ বলেন, সংবিধানের ১২৩ (৩) অনুচ্ছেদ না মেনে সংসদ বিলুপ্ত না করেই পরপর দুটো অবৈধ নির্বাচনি নাটক মঞ্চস্থ করেছে বর্তমান স্বৈরশাসকেরা। সংসদের চেম্বারে বসার আসন ৩৫০ হলেও শপথবদ্ধ ভোট ডাকাতদের সংখ্যা বর্তমানে প্রায় ৬৫০ জন। ঢাকার লোকাল বাসের মত জোর করে সিটে বসার মতো সংসদীয় ভোটচোরদের মধ্যে অনিবার্য সংঘাত সংঘর্ষ বেধে যেতে পারে।

সমাবেশে আরও উপস্থিত ছিলেন, এবি পার্টির প্রচার সম্পাদক আনোয়ার সাদাত টুটুল, মহানগর উত্তরের আহ্বায়ক আলতাফ হোসাইন, সিনিয়র সহকারী সদস্য সচিব আব্দুল বাসেত মারজান, সহকারী সদস্য সচিব শাহ আব্দুর রহমান, যুবপার্টির সদস্যসচিব শাহাদাতুল্লাহ টুটুলসহ কেন্দ্রীয় ও মহানগরীর বিভিন্ন পর্যায়ের নেতৃবৃন্দ।

 

সংবাদটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করুন

এ বিভাগের আরো সংবাদ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!